ঘরে বসে জমির খাজনা পরিশোধ করার নিয়ম (Idtax gov bd)

ঘরে বসে কিভাবে জমির খাজনা পরিশোধ করতে হয় এই বিষয়ে যদি আপনি জানতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য।

আশা করি কিভাবে আপনি ঘরে বসে অনলাইনে জমির খাজনা পরিশোধ করবেন এই বিষয় সম্পর্কে এখান থেকে জানতে পারবেন।

ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করা প্রতিটি বাংলাদেশী নাগরিকের জন্য বাধ্যতামূলক। অবশ্যই এটি আমাদেরকে পরিশোধ করতে হবে যদি আপনার কোন স্থানীয় জমি / বাড়ির খাজনা পরিশোধ করা না হয়ে থাকে।

তাহলে আপনি সেটি অনলাইনের মাধ্যমে যেকোনো সময় পরিশোধ করে দিতে পারবেন।

জমির খাজনা পরিশোধ করার নিয়ম

অনেকের হয়তোবা জমির খাজনা টাকা পরিশোধ করা বাকি রয়েছে। সাধারণত কয়েক বছর পর পর সরকারি কর্মকর্তারা প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে তার খাজনা আদায় করে থাকে।

এক্ষেত্রে অনেকেই হয়তো বা টাকা না থাকার কারণে প্রদান করতে পারে না এবং পরবর্তী সময়ে তারা আর এই টাকার জন্য আপনার বাড়িতে আসে না।

তাহলে কিভাবে আপনি জমির খাজনা বা কর পরিষদ করবেন। এর জন্য সহজ উপায় হলো ঘরে বসে কাজ না পরিশোধ করতে পারবেন অনলাইনে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

বাংলাদেশ ভূমি উন্নয়ন কর বা Idtax.gov.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই আপনার খাজনা বা কর পরিশোধ করতে পারবেন। তাও আবার মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

আরোও পড়ুন: নাম দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই নিয়ম

আমি সকলের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করব কিভাবে আপনি ঘরে বসে সঠিক নিয়মে জমির খাজনা পরিশোধ করবেন এবং আপনি টাকা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন। অর্থাৎ বিকাশ রকেট ইত্যাদির মাধ্যমে ভুমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করা যাবে।

তাহলে চলুন এখন আমরা দেখিনি কিভাবে আপনি এই কাজটা করবেন। সম্পূর্ণ প্রচেষ্টা নিয়ম আমরা ছবিতে দেখানোর চেষ্টা করব আশা করি বুঝতে পারবেন।

অনলাইনে জমির খাজনা পরিশোধ করার নিয়ম

ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ অনলাইন করার জন্য আমাদের অবশ্যই একটি স্মার্ট ডিভাইস প্রয়োজন হবে এবং এখানে ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে।

ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ অনলাইনে প্রদান করতে https://ldtax.gov.bd/ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর “পেমেন্ট করুন” নামের অপশনে ক্লিক করে বিভাগ, জেলা, উপজেলা, মৌজা, এবং হোল্ডিং নাম্বার ব্যবহার করে বকেয়া জমির খাজনা পরিশোধ করতে পারবেন।

এখন বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। প্রথমে ওপরে থাকা ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন এরপর নিচে থাকা স্ক্রিনশটের মত একটি পেজ চলে আসবে।

তবে অবশ্যই আপনাকে ওয়েব সাইটে প্রকাশ করার পর পেমেন্ট করুন অপশনে ক্লিক করার পর এই অপশনটি দেখতে পারবেন।

এখানে আমাদেরকে সর্বপ্রথম বিভাগ বাছাই করতে হবে। অর্থাৎ আপনি যে বিভাগে রয়েছেন জেলা উপজেলা নির্বাচন করবেন। এরপর আপনার মৌজা আসবে সেখান থেকে বাছাই করবেন।

এবং সর্বশেষ হোল্ডিং নাম্বারটি এখানে দিতে হবে অবশ্যই এটি সঠিক ভাবে দেখে নিবেন যেন কোন ভুল ত্রুটি না থাকে।

এরপর এখান থেকে “অনুসন্ধান করুন” ক্লিক করে কিছুক্ষণ সময় আমাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে তারপর দেখতে পারবেন আপনার জমি কর পরিশোধ এবং বকেয়া তালিকা এসে গিয়েছে।

এখানে আমাদের জমি এবং নামটি চলে এসেছে। যদি এইভাবে চলে আসে, তাহলে বুঝতে পারবেন আমাদের তথ্যগুলি সঠিক রয়েছে।

এখন আমরা চাইলে বকেয়া কর বা খাজনা পরিশোধ করতে পারবো।

এখান থেকে আমাদেরকে এখন সরাসরি “এনআইডি যাচাই” অপশনে যেতে হবে। এখন পরবর্তী ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

এখন এখানে আমাদেরকে এনআইডি কার্ড অথবা জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদান করতে হবে। আপনার কাছে ভোটার আইডি আছে সেটি আপনি এখানে ব্যবহার করতে পারেন।

তবে সবচেয়ে ভালো হবে যার নামে এই ভূমি তার আইডি কার্ড ব্যবহার করা।

দেখতে পারতেছেন এখানে জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য চলে এসেছে। এখন আমরা পরবর্তী ধাপে গিয়ে আমাদের বকেয়া কর বা জমির খাজনা পরিশোধ করতে পারব।

তবে অবশ্যই এই নিয়মেই আপনাকে করতে হবে। কেননা ওয়েবসাইট আপডেট হলো এই নিয়মটি কিন্তু অনেক আগে থেকে চালু রয়েছে।

এখন দেখতে পাচ্ছেন আমাদের এখানে সম্পূর্ণ ডিটেইলস বা বিস্তারিত ভাবে চলে এসেছে। আপনি শেষ করবেন কতদিন আগে জমির খাজনা পরিষদ করেছেন।

এবং আপনার কাছে বর্তমান সময়ে কত টাকা বাকি রয়েছে কর পরিশোধ এর ইত্যাদি।

আমি যে ভোটার আইডি কার্ড বা হোল্ডিং নাম্বার ব্যবহার করেছি এখানে কোন প্রকার বকেয়া নেই। যার কারণে অপশনটি পাওয়া যাচ্ছে না।

যখন আপনার কোন প্রকার বকেয়া থাকে। তখন নিচে দেখতে পারবেন পেমেন্ট করুন নামের অপশন রয়েছে।

সেখান থেকে আপনার সরাসরি মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহার করে, যেমন বিকাশ রকেট ইত্যাদি ব্যবহার করে আপনার বকেয়া টাকা পরিশোধ করে দিতে পারবেন।এবং সেখান থেকে স্লিপ সংগ্রহক্ষণ করতে পারবেন।

শেষ কথা

আশা করি বুঝতে পেরেছেন যদি কোন কিছু বুঝতে সমস্যা কোন সময় থাকে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে আপনার মতামত জানাবেন। আমরা চেষ্টা করবো আপনার সমস্যা সমাধান দেওয়ার জন্য।

Leave a Comment

x