পাটের কার্পেটের দাম ২০২৪

পাটের কার্পেটের দাম ২০২৪, অনেকেই এ সম্পর্কে জানতে চান। কিন্তু এ বিষয়ে সঠিক কোন আর্টিকেল খুঁজে পান না। মূলত তাদের জন্যই আজকের এই আর্টিকেল। পাটের কার্পেটের দাম এর পাশাপাশি মসজিদের কার্পেটের দাম, ফ্লোর কার্পেটের দাম, প্লাস্টিক কার্পেটের দাম, নরমাল কার্পেটের দাম ইত্যাদি সম্পর্কে আলোচনা করব।

পাটের কার্পেটের দাম ২০২৪

তাই যারা কার্পেট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান। অবশ্যই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

পাটের কার্পেটের দাম ২০২৪

পাটের তৈরি কার্পেটের দাম ৭৫০ থেকে শুরু করে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে। বাংলাদেশে পাটকলে তৈরি প্রধান তিনটি পন্য হচ্ছে চট বস্তা এবং কার্পেট। কাগজের ব্যাগ এর ব্যবহার বিপুল পরিমাণে বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে মোড়কজাতীয় পণ্য হিসেবে পাটের তৈরি বস্তার চাহিদা অনেকটাই কমে গেছে এবং এর ফলে পাট থেকে বিপুল পরিমাণে কার্পেট উৎপাদন শুরু হয়।

কার্পেট তৈরির কাজ মূলত কুটির শিল্পের আওতাভুক্ত। ১৯ শতকের পঞ্চাশ দশকে সরকারি পাটকল প্রতিষ্ঠা করে তারপর থেকেই পাটকলে কার্পেট তৈরির কাজ চালু হয়। এই কার্পেট আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি অংশ। তাছাড়াও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় এটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

প্লাস্টিক কার্পেটের দাম

প্লাস্টিক কার্পেটের দাম এর কোয়ালিটি এবং ডিজাইন অনুসারে হয়ে থাকে। বিভিন্ন মডেলের প্লাস্টিক কার্পেট রয়েছে। এর রোলার অনুযায়ী দাম বলা হয়ে থাকে। তবে গজ অনুযায়ী প্লাস্টিক কার্পেট বিক্রি করা হয়। প্লাস্টিক কার্পেটের এক রোলার ৬০০ টাকা থেকে শুরু করে ১৩৫০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে। তবে আপনার যদি এক রোলার পরিমাণ প্রয়োজন না হয়। সে ক্ষেত্রে আপনি গজ হিসেবে প্লাস্টিক কার্পেট করতে পারবেন। তবে একটা বিষয় মাথায় রাখা ভালো। বিভিন্ন স্থান ভেদে এই পণ্য গুলির দাম কম বেশি হতে পারে। তাই অবশ্যই নিজে যাচাই করে তারপরেই ক্রয় করা ভালো।

পাটের কার্পেটের গজ কত

অনেকেই গজ হিসেবে কার্পেট কিনতে চাই। কিন্তু পাটের কার্পেটের গজ কত টাকা করে এটা অনেকেই জানেনা। পাটের কার্পেটের গজ ১৭০ থেকে ৩৮০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে বিভিন্ন স্থান ভেদে এর দামের কিছুটা তরতম্য হতে পারে। পাটের কার্পেট বেশিরভাগ সময়ই মসজিদে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এগুলো অনেক ভালো এবং উন্নত মানের হয়। সহজেই এগুলো নষ্ট হয়ে যায় না। পাশাপাশি এগুলোর কালারও স্থায়ী হয়ে থাকে। এই কার্পেটের উপর দিয়ে হাঁটা চলাতে অনেক সুবিধা হয়ে থাকে। বিশেষ করে পা পিছলে যাওয়ার কোন সম্ভাবনাই থাকে না। তাই যারা পাটের কার্পেট কিনতে চান। তারা নির্দ্বিধায় এগুলো গজ আকারে কিনতে পারবেন।

পাটের কার্পেটের দাম ২০২৪

কার্পেট স্থায়ীভাবে ভালো রাখতে করণীয়

সব জিনিসই যত্নের উপর টিকে থাকে। আপনি যদি সব থেকে সেরা পণ্যটারও যত্ন না নেন তাহলে হয়তো খুব দ্রুত সেটি নষ্ট হয়ে যাবে। তাই প্রত্যেকটা জিনিসের যত্ন নেওয়া অতীব জরুরী। কিন্তু কার্পেট স্থায়ীভাবে ভালো রাখতে কি কি করনীয়? চলন সেটির নিচে দেখে নেয়া যাক।

  • আলো-বাতাস চলাচল করে এমন জায়গায় কার্পেট রাখুন।
  • আগুন বা পানি থেকে কার্পেট দূরে রাখাই ভালো।
  • ভেজা বা আর্দ্র জায়গায় কার্পেট না রাখাই উচিত। অন্যথায় তা সহজে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে।
  • নিয়ম করে কার্পেট পরিষ্কার রাখুন। ধুলাবালি জমতে না দেওয়াই ভালো। দু`মাসে একবার হালকা রোদে দিয়ে ঝেড়ে নিন।
  • ইঁদুর জাতীয় প্রাণী বা পোকামাকড় থেকে কার্পেট বাঁচাতে মাঝেমধ্যে কীটনাশক ব্যবহার করতে পারেন।
  • অনেক জায়গায় কার্পেট ওয়াশ করা হয়। হট ওয়াটার ওয়াশিং, স্ট্রিম ক্লিনিং, ড্রাই ক্লিনিং করে কার্পেট পরিষ্কার রাখতে পারেন।

রুম কার্পেটের দাম

রুম কার্পেটের দাম ৫০০ টাকা থেকে শুরু। ঘর সাজাতে এবং পরিষ্কার রাখার জন্য কার্পেট বিশেষ রকমের ভূমিকা পালন করে থাকে। ঘর সাজানোর কথা বলতেই আমরা ভাবি পর্দা, কাভার, আয়না দিয়ে ঘরের সৌন্দর্য পাল্টে দেয়ার কথা। তবে এসব কিছুর সাথে কার্পেটের ব্যবহার শীতকালে ঘরের ভেতরটা আরও আরামদায়ক ও সৌন্দর্যিক করে তুলে।

আরো পড়ুনঃ স্টাইলিশ ফেসবুক আইডির নাম বাংলা ও ইংরেজি

কার্পেট এর মধ্যে কার্পেট কিছুটা ভারী ধাঁচের হলেও শীতে ঘর উষ্ণ রাখার এটি অন্যতম উপায়। বিছানা থেকে পা ফ্লোরে ফেলতেই ঠান্ডা হয়ে থাকা ফ্লোরের ধাক্কা যেন আপনাকে অনুভব করতে না হয়, সে কারণে রঙিন ডিজাইনের চমৎকার সব প্যাটার্ন থেকে পছন্দের ডিজাইনের কার্পেট রাখতে পারেন বিছানার ঠিক পাশেই। এছাড়া লিভিং কিংবা ড্রইং রুমের ফ্লোরের জন্য মাঝারি কিংবা বড় আকৃতির কার্পেট কিনতে পারেন ঘরের অন্যসব আসবাব কিংবা ডেকোরেটেড আইটেমের সাথে মিল রেখে।

মসজিদের কার্পেটের দাম ২০২৪

বর্তমান মসজিদের কার্পেটের মূল্য প্রতি ফুট ৩০০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা। অনেক বৃদ্ধ মানুষ আছে মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে ফ্লোরে নামাজ পড়তে অনেকটাই কষ্ট হয়ে যায়। আবার বিশেষ করে পুরা মসজিদে শীতের মধ্যে কার্পেট এর প্রয়োজন পড়ে। অনেক নতুন মসজিদ হয়েছে কিন্তু মসজিদে ভালো কার্পেট নাই। কার্পেট কিনতে চাইলে ঢাকা বায়তুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটে এবং কি গুলশান, উত্তরা মার্কেটে মসজিদের জন্য ভালো উন্নত মানের কার্পেট পাওয়া যায়। কোয়ালিটি অনুযায়ী কার্পেট এর দাম কমবেশি হয়ে থাকে। আপনি মসজিদের কার্পেট ফুট, গজ, আকারে কিনতে পারবেন।

মসজিদের কার্পেটের গজ কত

১ গজ মসজিদের কার্পেটের দাম ৮০০ টাকা থেকে ১২৫০ টাকা। অনেক সুন্দর জায়নামাজ ডিজাইনের মসজিদের কার্পেট পাওয়া যায়। কয়েকটি ধরনের কার্পেট রয়েছে। কার্পেটের কোয়ালিটি অনুযায়ী মূল্য কম বেশি হয়। হালকা শক্ত কার্পেট থেকে শুরু করে নরম কার্পেট পাওয়া যায়। নরম কার্পেট গুলোতে নামাজ পড়তে অনেকটাই সুবিধা হয়। এবং নরম কার্পেট গুলোর একটু দাম বেশি হয়ে থাকে। অনেকেই মসজিদের কার্পেট কেনার আগে কত টাকা গজ সে সম্পর্কে ধারণা নিতে চায়।

মসজিদের পাটের কার্পেটের দাম

প্রতি বর্গফুট পাটের তৈরি কার্পেটের দাম ১৫০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা। পাটের তৈরির কার্পেটের দাম একটু বেশি। কারণ পাটের তৈরির কার্পেট গুলো দেখতে অনেক সুন্দর ডিজাইন এর হয়। এবং অন্যান্য কার্পেটের তুলনায় পাটের তৈরির কার্পেট অনেকটাই জনপ্রিয়। কিছু মানুষ আছে তারা মসজিদের জন্য পাটের কার্পেট খুঁজে থাকে। পাটের তৈরি কার্পেট গুলো বর্গফুট আকারে বিক্রি করা হয়ে থাকে।

কার্পেটের পাইকারি বাজার

বাংলাদেশে কয়েক ধরনের পাপোশ তৈরি হয়। যেমন- নারিকেলের ছোবড়া, মখমল, চট, চট-সুতার বুননে তৈরি হয় এসব পাপোশ। ইদানীং এক ধরনের সিনথেটিকের পাপোশও পাওয়া যায়। ঢাকা ও বরিশাল পাপোশ তৈরির জন্য প্রসিদ্ধ। এসব জায়গা থেকে পাপোশ সংগ্রহ করে দোকানে সরবরাহ করা হয়।

আর এফ এল ফ্লোর ম্যাট দাম

ম্যাটেরিয়াল, আকৃতি এবং ডিজাইন ভেদে কার্পেটের দামে তারতম্য দেখা দেয়। গজ হিসেবে বিক্রি করা আরএফএল কার্পেটের দাম প্রতি গজ ৬৫০ টাকা থেকে ২,৪০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। শীতকালে ঘর সাজাতে কার্পেটের ব্যবহার ঘরের সৌন্দর্য যেমন বাড়িয়ে দেবে, তেমনি এর যত্ন নেয়া পরিষ্কার রাখার বিষয়টিও সমান গুরুত্ব পাবে।

যদি প্রশ্নে থাকা 12×12 ঘরটি একটি সাধারণ বর্গক্ষেত্র হয়, তাহলে এই দুটি পরিমাপকে 144 এর সমান করুন। অতএব, আপনার কমপক্ষে 144 বর্গফুট কার্পেট প্রয়োজন।

শেষ কথা

আশা করছি উপরে উল্লেখিত সমস্ত তথ্যের মাধ্যমে পাটের কার্পেটের দাম পাশাপাশি সমস্ত কার্পেটের দাম, মসজিদের কার্পেটের দাম, নরমাল কার্পেটের দাম সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন। আমি চেষ্টা করেছি সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে আপনাদের সামনে তুলে ধরার জন্য। পাশাপাশি সমস্ত কথাগুলো সহজ ভাবে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করার জন্য। তারপরও যদি আপনারা কোথাও বুঝতে না পারেন তাহলে অবশ্যই পোস্টটি পুনরায় মনোযোগ সহকারে পড়বেন। আজকের মতো এতোটুকুই দেখা হবে পরের কোন আর্টিকেলে।

আরও পড়ুনঃ মেয়ের জন্মদিনের ইসলামিক শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

Visited 85 times, 1 visit(s) today

Leave a Comment

x