পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম ২০২৩ | Passport Renewal Bangladesh.

আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই আশা করি ভাল আছেন আপনাদের সামনে আরো একটি নতুন হাজির হলাম। আমরা দেখে নেবো পাসপোর্ট রিনিউ করতে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয় এবং কিভাবে আপনি পাসপোর্ট রিনিউ করবেন।

বর্তমান সময়ে এবং ভবিষ্যতের জন্য আপনি এই কাজগুলি সম্পর্কে আগে থেকে জেনে নিতে পারেন কেননা যদি আপনার একটি পাসপোর্ট থাকে তাহলে সেটি অবশ্যই আপনাকে একসময় রিনিউ করতে হবে। আপনি ঘরে বসে কিন্তু আপনার পাসপোর্ট রিনিউ এর সম্পূর্ণ ধাপ সম্পর্কে জানতে পারবেন।

পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম ২০২৩।

পাসপোর্ট রিভিউ করতে আমাদের বেশ কিছু ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে। যদি আপনার একটি পাসপোর্ট থাকে তাহলে সেটি অবশ্যই আপনাকে রিনিউ করতে হবে কেননা এই পাসপোর্ট এর মেয়াদ অবশ্যই একদিন না একদিন শেষ হয়ে যাবে।

আরোও পড়ুন: পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে পাসপোর্ট চেক।

এবং সেটি আমার পুনরায় রিনিউ করতে হবে আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে আপনার পাসপোর্ট রিনিউ করে নিতে পারবেন। যদি তার মেয়াদ শেষ হয়ে থাকে তাহলে। এবং কিভাবে আপনি এখানে টাকা পরিশোধ করবেন সেই বিষয়গুলো আর্টিকেলের মধ্যে শেয়ার করার চেষ্টা করব।

আপনার যেকোনো ধরনের পাসপোর্ট করতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে। যেমন ই-পাসপোর্ট রিনিউ করা যাবে অথবা এমআরপি পাসপোর্ট আপনি রিনিউ করতে পারবেন অনলাইন থেকে খুব সহজে এবং অল্প সময়ের মধ্যে।

পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়মাবলী ২০২৩।

যেকোনো ধরনের পাসপোর্ট আপনি ঘরে বসেই রিনিউ করতে পারবেন। তবে এখানে আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে যেগুলো ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা আমাদের কাজগুলোকে আরো সহজ ভাবে সম্পুর্ণ করতে পারব।

পাসপোর্ট রিনিউ করার ক্ষেত্রে অবশ্যই মনে রাখবেন আপনার অবশ্যই পূর্বের পাসপোর্টটি প্রয়োজন হবে। এবং এখানে বেশ কিছু ডকুমেন্ট আমাদের প্রয়োজন হবে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আবার আপনার পাসপোর্টে রিভিউ করে নিতে পারবেন।

পাসপোর্ট রিনিউ করতে কি কি লাগবে ?

যেকোনো ধরনের পাসপোর্ট রিনিউ করার ক্ষেত্রে নিচে থাকা ডকুমেন্টগুলো সংরক্ষণ করবেন। যেমন: পূর্বের পাসপোর্ট, জন্ম সনদ, ভোটার আইডি কার্ড, পিতা-মাতা ভোটার আইডি কার্ড, পেশা-গত সনদ।

এই গুলি আমাদের প্রয়োজন হবে পাসপোর্ট রিনিউ করার ক্ষেত্রে এবং অবশ্যই আপনার এই ডকুমেন্ট গুলি থাকা জরুরি তাছাড়া কিন্তু আপনি ভাবেই আপনার পাসপোর্ট রিভিউ করতে পারবেন না।

প্রথমে আমাদেরকে অনলাইনে একটি ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে এবং সেখান থেকে কিন্তু আমরা আমাদের পরবর্তী ধাপ গুলি অবলম্বন করে খুব সহজেই পাসপোর্ট রিনিউ করতে পারবো।

অনলাইনে পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম।

পাসপোর্ট রিভিউ করতে হলে সর্বপ্রথম অনলাইনে একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আমাদেরকে একাউন্ট তৈরি করতে হবে যদি পূর্বে কোন প্রকার একাউন্ট না থাকে। এবং এর থেকে আপনাকে ধাপে ধাপে পরবর্তী কাজগুলো করে নিতে হবে।

পাসপোর্ট রিনিউ করার জন্য প্রথমে এই www.epassport.gov.bd/onboarding ওয়েবসাইটে একটি আইডি তৈরি করতে হবে। এখানে একাউন্ট করার জন্য মোবাইল নাম্বার ইমেইল একাউন্ট প্রয়োজন হবে।

কিভাবে এই ওয়েবসাইটে আপনি একাউন্ট করবেন তা নিয়ে ইউটিউব থেকে একটি ভিডিও দেখে নিতে পারেন এবং পরবর্তী সময় আপনাকে যা করতে হবে অ্যাকাউন্ট সম্পন্ন একটিভ করার পর নতুন একটি অপশন আসবে যেখান থেকে আমাদেরকে কাজগুলি করে নিতে হবে।

পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম ২০২৩
পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম ২০২৩

আপনার একাউন্টে সম্পূর্ণ তৈরি এবং একটিভ হওয়ার পর উপরে স্ক্রিনশটে থাকা অপশনটি দেখতে পারবেন এবং এই অপশনের মাধ্যমে কিন্তু আমরা আমাদের পাসপোর্ট রিভিউ করতে পারবো।

আরোও পড়ুন: Malaysia visa check Passport nambar

ই পাসপোর্ট অথবা এমআরপি পাসপোর্ট আপনি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে রিনিউ করতে পারবেন। ৫ বছর এবং ১০ বছরের জন্য ৪৮ পাতার। হয়তো জানা রয়েছে বর্তমান সময়ে ৬৪ পাতা পাসপোর্ট বন্ধ রয়েছে যার কারণে আপনি ৪৮ পাতা পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন বা রিনিউ করতে পারবেন।

তো উপরোক্ত স্ক্রিনশটে থাকা ছবিটি ক্লিক করার পর আপনার সামনে নিচে স্ক্রিনশট এর মত একটি পেজ চলে আসবে যেখানে আমাদেরকে সঠিকভাবে তথ্য সাবমিট করতে হবে। কোন প্রকার ভুল ত্রুটি যেন না হয় তাহলে কিন্তু আপনার পাসপোর্ট রিনিউ হবে না বরং আরো অ্যাকাউন্টে সমস্যা হবে।

এরপর এখান থেকে সিলেক্ট বা বাছাই করে নিতে হবে আপনার পাসপোর্টটি কোন টাইপের। সাধারণত পাসপোর্ট দুই ধরনের হয়ে থাকে একটি হল পার্সোনাল এবং একটি হচ্ছে অফিসের। যদি আপনি সাধারণ পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকেন তাহলে উপরে যে অপশনটি হয়েছে সেটি ক্লিক করবেন।

এবং যদি আপনি কোন অফিস বা কার্যালয় এর অধীনে কোন পাসপোর্ট রিনিউ করতে চান এক্ষেত্রে নিজের অপশনে ক্লিক করতে হবে তো এখান থেকে আপনি যেকোনো একটি অপশন নিতে পারেন যেটি আপনার পাসপোর্ট এর সাথে বর্তমানে সম্পর্কিত।

Passport Renewal process Bangladesh

এবং পরবর্তী অপশনে ক্লিক করে আমাদের পরবর্তী ধাপে যেতে হবে নিজের ছবিটি লক্ষ্য করুন তাহলে বুঝতে পারবেন এখানে আমাদেরকে সকল ধরনের ডকুমেন্ট সাবমিট করতে হবে।

তো দেখতে পাচ্ছেন এখানে আমাদেরকে অনেকগুলি তথ্য প্রদান করতে হবে এবং অবশ্যই মনে রাখবেন এখানে যেন কোন ধরনের ভুল ত্রুটি না হয়। এক্ষেত্রে কিন্তু পরবর্তী সময়ে আপনার অ্যাকাউন্টটি গ্রহণযোগ্য হবে না এবং আপনি পাসপোর্ট রিনিউ করতে পারবেন না কোনোভাবেই।

এখানে আমাদেরকে যে সকল তথ্য দিতে হবে আপনি ঘর গুলি লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন এরপরও আমি বলে দিচ্ছি আশা করি আপনারা বুঝতে কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

জেন্ডার এখান থেকে যাচাই করতে হবে অবশ্যই আপনি ছেলে না মেয়ে তা ভালোভাবে লক্ষ রাখবেন। পূর্বে যখন আপনি একাউন্ট করেছিলেন তখন কিন্তু একাউন্টের মধ্যে যে সকল তথ্য প্রদান করেছিলেন তা এখানে দেখতে পাবেন যদি তা সঠিকভাবে প্রদান করে থাকেন।

এবং নিচে দেখতে পারবেন আরো কিছু তথ্য দিতে হবে তার মধ্যে মোবাইল নাম্বার এবং কান্ট্রি অবশ্যই সঠিকভাবে দেখে আপনার মোবাইল নাম্বারটি সঠিকভাবে এখানে বসিয়ে দেবেন।

এরপর আপনার ঠিকানা এবং পেশা এ সমস্ত বিষয়গুলি খুব ভালোভাবে লক্ষ রাখবেন যেন কোন প্রকার ভুল ত্রুটি না হয় এক্ষেত্রে কিন্তু সমস্যা হবে।

এই পরবর্তী পেজে আপনি আরো দেখতে পারবেন বিশেষ কিছু ডকুমেন্ট এবং থানা জেলা উপজেলা ইত্যাদি এ বিষয়গুলি দেখার সর্বশেষে দেখতে পারবেন একটি ডকুমেন্ট আপনাকে প্রদান করতে বলবে আপনি যেকোনো ধরনের ডকুমেন্ট প্রদান করতে পারেন।

যেমন ভোটার আইডি কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স শিক্ষাগত সনদ যেকোনো একটি ডকুমেন্ট আপনি এখানে সাবমিট করবেন কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

এমআরপি পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম।

আপনি তো এখান থেকে যেকোনো ধরনের পাসপোর্ট করতে পারবেন সেটি এমআরপি পাসপোর্ট ও অথবা ই পাসপোর্ট কোন প্রকার সমস্যা নেই দুটো পাসপোর্ট একইভাবে আপনি রিনিউ করতে পারবেন।

আপনি সিলেক্ট করে নিবেন আপনি যে পাসপোর্টটি রিনিউ করতে চাচ্ছেন এবং এরপর আপনাকে বিশেষ কয়েকটি ধাপ অবলম্বন করতে হবে তাহলে আপনি কি কারনে পাসওয়ার্ডটি পুনরায় ইস্যু করতেছেন।

এখান Expired এবং এখানে আরো কিছু তথ্য চাইতে পারে সেই তথ্যগুলো সঠিকভাবে পূরণ করবেন। সর্বশেষ আপনার ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বারটি এখানে চাবে তা দিয়ে পরবর্তী অপশনে ক্লিক করলে কিন্তু আমাদের কাজ শেষ হয়ে যাবে।

এখন আপনাকে এই তথ্যগুলি পুনরায় নির্বাচন করতে হবে অর্থাৎ আপনি যে সমস্ত ডকুমেন্ট তথ্য এখানে সাবমিট করবেন তা আপনাকে সামারী হিসেবে একটি ডকুমেন্ট দেওয়া হবে।

এখানে আপনাকে যতগুলো ডকুমেন্ট দেওয়া হবে সবগুলো ডকুমেন্ট মোবাইল ফোনে সঠিকভাবে সংরক্ষণ করে রাখবেন কেননা এগুলো পরবর্তী সময় খুবই গুরুত্বপূর্ণ এগুলো ছাড়া আপনি পাসপোর্ট রিনিউ করতে পারবেন না।

কয়েকটি সামারি ফরম ইত্যাদি আপনাকে দেওয়া হবে এগুলো মোবাইল ফোনে সংরক্ষণ করে পরবর্তী সময়ে কোন একটি কম্পিউটারের দোকান হতে সংরক্ষণ করবেন ফটোকপি হিসেবে।

এবং সর্বশেষে যেতে পারবেন আপনি কতদিনের জন্য পাসপোর্ট তৈরি করতে যাচ্ছেন। এখানে দেয়া রয়েছে ৫ বছর এবং ১০ বছর আপনি যেটি নিতে ইচ্ছুক তারা নিতে পারেন এবং সিলেক্ট করার পরবর্তী অপশনে ক্লিক করে দেবেন।

এরকম একটি ছবি আসবে তো আপনি অনলাইনে পেমেন্ট অথবা অফলাইনে পেমেন্ট করতে পারবেন তবে বর্তমান সময়ে অনলাইন পেমেন্টটি বন্ধ রয়েছে আপনি চাইলে অফলাইনে পেমেন্ট করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

সকল ধরনের ডকুমেন্ট আপনি এখান থেকে সংরক্ষণ করবেন এবং পরবর্তী সময়ে ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করতে হবে অর্থাৎ এখানে যে ফি রয়েছে তার ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করতে হবে।

ব্যাংকে টাকা পরিশোধ করার পর তারা একটি ডকুমেন্ট বা সামারে আপনাকে দেখে সেটি সঙ্গে নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে সকল ডকুমেন্ট আপনি তাদের কে জমা করে দিবেন।

পাসপোর্ট রিনিউ হতে কত দিন লাগে। ২০২৩

যদি সঠিকভাবে দেওয়া হয়ে থাকে তাহলে আপনার পাসপোর্ট ২০ থেকে ২৫ দিনের মধ্যে তৈরি হয়ে যাবে এবং আপনি পরবর্তী সময় অনলাইন থেকে পুনরায় চেক করে নিতে পারবেন।

এখানে কয়েকটা ভাগ হয়েছে আপনি যদি সাধারণভাবে পাসপোর্ট রিনিউ করেন এক্ষেত্রে আপনার নির্দিষ্ট পরিমাণে থাকা খরচ হবে এবং যদি আপনি দ্রুত সময়ের মধ্যে পাসপোর্ট নিতে ডেলিভারি নিতে চান এক্ষেত্রে বেশি টাকা খরচ হবে।

সকল ডকুমেন্ট যখন আপনি পাসপোর্ট অফিসে জমা দেবেন তারা আপনাকে একটি ডেলিভারি স্লিপ দিবে যা পরবর্তী সময় এই স্লিপের মাধ্যমে আপনি আপনার পাসপোর্ট টি উত্তোলন করতে পারবেন।

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি এই পর্যন্তই পরবর্তী সময়ে পাসপোর্ট সম্পর্কিত অন্য কোন বিষয় সম্পর্কে ওয়েবসাইটের আর্টিকেল পাবলিশ করা হবে সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Comment

x