বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে। ২০২৩

আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই আশা করি সকলেই ভালো রয়েছেন নতুন একটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম আজ আমরা দেখে নেব বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে অর্থাৎ ৪০ এবং ৪০ বছর এর বেশি তাদের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগবে এবং কিভাবে আপনি জন্ম নিবন্ধন করবেন।

আজকের বিষয় সমুহ।

বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে।

বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে বেশ কিছু কাগজপত্র লাগবে আমরা কয়েকটি আর্টিকেল এর মাধ্যমে জেনে নেব বড় এবং ছোটদের জন্মদিন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সমূহ। তো এই আর্টিকেল থেকে শুধু আমরা জানার চেষ্টা করব বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে।

বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগবে।
বড়দের জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগবে।

অনেকে হয়তো আগে জন্ম নিবন্ধন তৈরি করেনি কিন্তু এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট যা আমাদের সকলের প্রয়োজন হবে এবং এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনি কখনো জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন হয় এবং আপনার বয়সের যে কোন পরিমাণ হোক না কেন সে ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কিন্তু জন্ম নিবন্ধন প্রকাশ করতে হবে।

আরো পড়ুন:

যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন না থাকে এক্ষেত্রে একটি জন্ম নিবন্ধন তৈরি করে নিতে পারেন। অনেকের হয়তোবা মনে হতে পারে আমার বয়স ৫০ পার হয়ে গেছে কিন্তু আমি কিভাবে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করব ? এর উত্তর হল আপনার বয়স যদি ৭০ বা ৮০ ও হয় এক্ষেত্রেও কিন্তু আপনি জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তবে হ্যাঁ অবশ্যই আপনার গুরুত্বপূর্ণ কিছু ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি যেকোনো বয়সে জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে পারবেন।

৪০ বচ্ছর বয়সে জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে।

এই আর্টিকেলে আমরা দুটি ভাগ জেনে নেব একটি হচ্ছে চল্লিশ বছর বয়সের জন্ম নিবন্ধন করতে আপনার কি কি প্রয়োজন হবে এবং অন্যটি হচ্ছে আপনার বয়স যদি ৪০ এর বেশি হয়ে থাকে এক্ষেত্রে আপনার জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে।

প্রথমত বলে নেই যাদের ৪০ বছর বয়স এখনো জন্ম নিবন্ধন তৈরি করেননি চাইলে এখনি কিন্তু আপনি আপনার জন্মদিনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই কিন্তু আপনার ২০০০ সালের পূর্বে জন্ম হতে হবে তাহলে এটি আপনার জন্য প্রযোজ্য।

তবে আপনার খুব বেশি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে না কেননা এক্ষেত্রে কিন্তু আপনার পিতা মাতার ডকুমেন্ট খুব কমই আপনি প্রকাশ করতে পারবেন। কেননা আগে কিন্তু এই ডকুমেন্টগুলোর খুব বেশি একটা প্রয়োজন ছিল না যার কারণে মানুষ এইগুলো তৈরি করেনি যার কারণে এখন অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

যদি আপনার ৪০ বছর বয়স হয়ে থাকে এক্ষেত্রে আপনি একই সীমার মধ্যে শুধুমাত্র কিছু গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট সাবমিট করার মাধ্যমে আপনি জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং আশা করি এই ডকুমেন্টগুলো যদি আপনি নির্বাহী কার্যালয় বা ইউনিয়নে যোগাযোগ করে জমা করেন আশা করি আপনার জন্মদিন হয়ে যাবে।

৪০ বছর বয়সে জন্ম নিবন্ধন করতে যা যা লাগবে।

এখানে আমাদের খুব বেশি ডকুমেন্ট প্রয়োজন নেই শুধুমাত্র সাধারণ কিছু ডকুমেন্ট আছে সাবমিট করবেন আশা করি এই ডকুমেন্টগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন নির্বাহী কার্যালয় বা ইউনিয়নে।

  • পিতামাতার ভোটার আইডি কার্ড লাগবে।
  • খতিয়ান এর ফটোকপি (যদি থাকে)
  • ট্যাক্স পরিশোধ এর ফটোকপি (যদি থাকে)
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকিলে তার সনদ।

এখানে আপনি চাইলে আপনার পিতা মাতার ভোটার আইডি কার্ড না থাকলে এবং তারা যদি মৃত হয়ে থাকে এক্ষেত্রে মৃত সার্টিফিকেট ব্যবহার করতে পারেন। তবে অবশ্যই যে কোন একটি সার্টিফিকেট আপনাকে ব্যবহার করতেই হবে যদি আপনি জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে চান।

৪০ বচ্ছরের উর্ধ্বে জন্ম নিবন্ধন করতে কি কি লাগে।

এখন আমরা দেখে নেব দ্বিতীয় ভাগ অর্থাৎ যদি আপনার বয়স 40 বছর এর উপরে হয়ে থাকে এক্ষেত্রে আপনি কিভাবে জন্ম নেবেন আবেদন করবেন এবং আপনার জন্ম নিবন্ধন পদ্ধতি কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে।

তখন তো সময় দেখা যেত জন্ম নিবন্ধন খুব বেশি একটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল না যার কারণে অনেকে এটি করেননি এবং এখন কিন্তু এটি অনেকটাই গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট একজন মানুষের জন্য। এবং এটি সকলের জন্য করা খুবই জরুরী।

যতক্ষণ বয়স ৪০ এর উর্ধ্বে হয়ে থাকে এক্ষেত্রে আপনিও কিন্তু জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন তবে আপনার সংক্ষিপ্ত কিছু ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে। সেগুলো প্রধানের মাধ্যমে নির্বাহী কার্যালয় অফিস অথবা ইউনিয়ন পরিষদে যোগাযোগ করে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তবে অবশ্যই হ্যাঁ আপনাকে যে সমস্ত ডকুমেন্ট দেওয়া ভালো হবে সেই সমস্ত ডকুমেন্ট প্রদান করতে হবে তাছাড়া কিন্তু আপনি জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন না এবং এখানে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট আপনাকে দিতেই হবে।

৪০ বছর উর্ধ্বে জন্ম নিবন্ধন করতে যা যা লাগবে।

এখানে এই ডকুমেন্টগুলি নাও থাকতে পারে তবে আপনি যে সমস্ত ডকুমেন্ট রয়েছে সেগুলো নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে এবং আপনার ওয়ার্ড কাউন্সিলের সাথে যোগাযোগ করবেন। অনেক ক্ষেত্রে এই ডকুমেন্টগুলি আপনাকে তারা বানিয়ে দেবে আইডিয়ার মাধ্যমে এবং সেগুলো দিয়ে কিন্তু আপনি জন্ম নিবন্ধন তৈরি করতে পারবেন।

  • পিতামাতার জাতীয় পরিচয়পত্র (যদি থাকে)
  • পিতামাতার ভোটার আইডি কার্ড (যদি থাকে)
  • খতিয়ান নাম্বার ও ফটোকপি (যদি থাকে)
  • ঠিকানা প্রমাণে ট্যাক্স সনদ, বিদ্যুৎ বিল সনদ।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা কোনো সনদ (যদি থাকে)

উপরে থাকা এই সমস্ত ডকুমেন্টের মাধ্যমে আপনি কিন্তু জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন যদি আপনার বয়স 40 এর ঊর্ধ্বে হয়ে থাকে।

এছাড়াও আপনার পিতা মাতার কোনো একটি ডকুমেন্ট যদি আপনি ব্যবহার করেন এক্ষেত্রে আরও সহজ হয়ে যাবে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় পিতা মাতার কোন ডকুমেন্ট খুঁজে পাওয়া যায় না তবে আপনার কাছে যদি তাদের মৃত্যু সার্টিফিকেট থাকে তাহলে সেটি ব্যবহার করতে পারেন সমস্যা নেই।

আশা করি বুঝতে পেরেছেন আপনি জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে এবং ৪০ বছর ও ৪০ বছরের উর্ধ্বে যারা রয়েছে অর্থাৎ ২০০০ সালের পূর্বে থেকে 40 বছর পর্যন্ত যাদের বয়স তারা এই নিয়মে এবং যাদের 40 বছরের উর্ধ্ব বয়স হয়েছে তারাও এই নিয়মে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এছাড়াও আরো বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য আপনার ইউনিয়ন কাউন্সিল বা মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করবেন। কেননা তারা কিন্তু আপনাকে আরো সহজে এই কাজগুলো করতে সহায়তা করবে।

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকবেন জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কিত আরো বিভিন্ন তথ্য পাওয়ার জন্য। ধন্যবাদ সবাইকে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য।

Leave a Comment

x