বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সকলেই খুব ভালো আছেন। আপনারা অনেকেই বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। আজকে আমি আপনাদেরকে বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে বলবো। তো চলুন শুরু করা যাক।

আজকের বিষয় সমুহ।

বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র:

  • আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্ট
  • প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর
  • প্রেরণ করতে চাওয়া টাকার পরিমাণ
  • সার্ভিস চার্জ

ধাপে ধাপে প্রক্রিয়া:

1. বিকাশ অ্যাপ্লিকেশন খুলুন:

  • আপনার স্মার্টফোনে বিকাশ অ্যাপ্লিকেশনটি খুলুন।

2. ‘টাকা পাঠানো’ বিকল্পে যান:

  • অ্যাপ্লিকেশনের মূল মেনু থেকে ‘টাকা পাঠানো’ বিকল্পটি টিপুন।

3. প্রাপক নির্বাচন করুন:

  • ‘প্রাপক’ ‍খাতে প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর লিখুন।
  • আপনি যদি আগে থেকে প্রাপককে সংরক্ষণ করে থাকেন, তাহলে তাদের নাম বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে তাদের নির্বাচন করতে পারেন।

4. টাকার পরিমাণ লিখুন:

  • আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান তা ‘টাকার পরিমাণ’ ‍খাতায় লিখুন।

5. ‘পাঠান’ ‍বাটনে ক্লিক করুন:

  • সকল তথ্য যাচাই করার পর ‘পাঠান’ ‍বাটনে ক্লিক করুন।

6. পিন প্রদান করুন:

  • আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্টের পিন প্রদান করুন।

7. লেনদেন নিশ্চিত করুন:

  • লেনদেনটি নিশ্চিত করার জন্য ‘নিশ্চিত করুন’ ‍বাটনে ক্লিক করুন।

8. ‍সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করুন:

  • ‍সার্ভিস চার্জ ‍আপনার বিকাশ অ্যাকাউंट থেকে ‍কাটা হবে।

9. লেনদেনের ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন:

  • ‍সফলভাবে লেনদেন সম্পন্ন ‍হলে আপনি একটি ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন।

অতিরিক্ত তথ্য:

  • আপনি প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত পাঠাতে পারবেন।
  • লেনদেনের ‍সার্ভিস চার্জ ‍প্রেরণকৃত ‍টাকার পরিমাণের উপর নির্ভর করে।
  • আপনি যদি বিদেশে অবস্থান করেন, তাহলে আপনাকে অতিরিক্ত ‍চার্জ ‍দিতে হতে পারে।

বিকাশে টাকা পাঠানোর ‍সুবিধা

বিকাশ বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় মোবাইল অর্থ লেনদেন সেবা। এটি দ্রুত, সহজ, নিরাপদ এবং সাশ্রয়ী মূল্যের হওয়ায় টাকা পাঠানোর জন্য একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে উঠেছে।

বিকাশে টাকা পাঠানোর কিছু উল্লেখযোগ্য সুবিধা হল:

দ্রুত এবং সহজ:

  • মাত্র কয়েকটি ক্লিকে আপনি যেকোনো সময় যেকোনো স্থান থেকে টাকা পাঠাতে পারেন।
  • লেনদেন প্রক্রিয়াটি খুবই সহজ এবং ব্যবহারকারী বান্ধব।

সুবিধাজনক:

  • আপনার বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করেই আপনি টাকা পাঠাতে পারেন, ব্যাংকে যেতে হবে না।
  • টাকা পাঠানোর জন্য আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক নয়।

নিরাপদ:

  • বিকাশ একটি নিরাপদ এবং নির্ভরযোগ্য প্ল্যাটফর্ম।
  • লেনদেনগুলি পিন এবং এসএমএস কোড দ্বারা সুরক্ষিত।

কম খরচে:

  • বিকাশে টাকা পাঠানোর জন্য খরচ তুলনামূলকভাবে কম।
  • লেনদেনের পরিমাণের উপর নির্ভর করে একটি ছোট পরিমাণের সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য।

সারা দেশে উপলব্ধ:

  • বিকাশ বাংলাদেশের সারা দেশে উপলব্ধ।
  • আপনি যেকোনো বিকাশ এজেন্টের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে এবং উত্তোলন করতে পারেন।

অতিরিক্ত সুবিধা:

  • আপনি বিদেশ থেকেও বিকাশে টাকা পাঠাতে পারেন।
  • আপনি বিকাশ ব্যবহার করে বিল পরিশোধ, মোবাইল রিচার্জ এবং অন্যান্য লেনদেন করতে পারেন।

বিকাশে টাকা পাঠানোর বিকল্প ‍মাধ্যম

বিকাশ ছাড়াও, আপনি বিভিন্ন বিকল্প মাধ্যম ব্যবহার করে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারেন। আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত বিকল্পটি নির্ভর করবে আপনার চাহিদা, সুবিধা এবং লেনদেনের পরিমাণের উপর।

কিছু জনপ্রিয় বিকল্প :

মোবাইল ব্যাংকিং:

  • Rocket: বিকাশের মতো, রকেট আরেকটি জনপ্রিয় মোবাইল অর্থ লেনদেন সেবা।
  • Nagad: এটি বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের একটি মোবাইল অর্থ লেনদেন সেবা।
  • Upay: এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক প্রতিষ্ঠান MetLife এর একটি মোবাইল অর্থ লেনদেন সেবা।

অনলাইন ব্যাংকিং:

  • আপনি আপনার ব্যাংকের ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে অনলাইনে বিকাশে টাকা পাঠাতে পারেন।
  • অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবহারের জন্য আপনার একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

এজেন্ট পয়েন্ট:

  • আপনি দেশব্যাপী অবস্থিত বিকাশ, রকেট এবং Nagad এজেন্ট পয়েন্টের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে পারেন।
  • এজেন্ট পয়েন্ট ব্যবহারের জন্য আপনার সাথে নগদ টাকা এবং পরিচয়পত্র থাকতে হবে।

ম্যানি ট্রান্সফার কোম্পানি:

  • আপনি Western Union, MoneyGram, Ria Money Transfer এর মতো আন্তর্জাতিক মানি ট্রান্সফার কোম্পানি ব্যবহার করে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারেন।
  • ম্যানি ট্রান্সফার কোম্পানি ব্যবহারের জন্য ফি বেশি হতে পারে।

ব্যাংক চেক:

  • আপনি ব্যাংক চেক ব্যবহার করে টাকা পাঠাতে পারেন, তবে এটি একটি ধীর এবং ঐতিহ্যবাহী পদ্ধতি।
  • ব্যাংক চেক ব্যবহারের জন্য আপনার একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে এবং চেক লিখতে হবে।

কোন বিকল্পটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো?

আপনার জন্য কোন বিকল্পটি সবচেয়ে ভালো তা নির্ভর করবে আপনার নির্দিষ্ট চাহিদার উপর।

  • দ্রুত লেনদেনের জন্য: মোবাইল ব্যাংকিং বা এজেন্ট পয়েন্ট ব্যবহার করুন।
  • কম খরচের জন্য: বিকাশ, রকেট অথবা Nagad ব্যবহার করুন।
  • বিদেশ থেকে: আন্তর্জাতিক মানি ট্রান্সফার কোম্পানি ব্যবহার করুন।
  • সুবিধার জন্য: আপনার ব্যাংকের অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবহার করুন।

বিকাশ থেকে বিকাশে টাকা ট্রান্সফার

বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি সহজেই একটি বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য বিকাশ অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে পারেন।

প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র:

  • আপনার বিকাশ অ্যাপ
  • প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর
  • প্রেরণ করতে চাওয়া টাকার পরিমাণ
  • সার্ভিস চার্জ

ধাপে ধাপে প্রক্রিয়া:

1. বিকাশ অ্যাপ খুলুন:

  • আপনার স্মার্টফোনে বিকাশ অ্যাপ্লিকেশনটি খুলুন।

2. ‘টাকা পাঠানো’ বিকল্পে যান:

  • অ্যাপ্লিকেশনের মূল মেনু থেকে ‘টাকা পাঠানো’ বিকল্পটি টিপুন।

3. প্রাপক নির্বাচন করুন:

  • ‘প্রাপক’ ‍খাতে প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর লিখুন।
  • আপনি যদি আগে থেকে প্রাপককে সংরক্ষণ করে থাকেন, তাহলে তাদের নাম বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে তাদের নির্বাচন করতে পারেন।

4. টাকার পরিমাণ লিখুন:

  • আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান তা ‘টাকার পরিমাণ’ ‍খাতায় লিখুন।

5. ‘পাঠান’ ‍বাটনে ক্লিক করুন:

  • সকল তথ্য যাচাই করার পর ‘পাঠান’ ‍বাটনে ক্লিক করুন।

6. পিন প্রদান করুন:

  • আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্টের পিন প্রদান করুন।

7. লেনদেন নিশ্চিত করুন:

  • লেনদেনটি নিশ্চিত করার জন্য ‘নিশ্চিত করুন’ ‍বাটনে ক্লিক করুন।

8. ‍সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করুন:

  • ‍সার্ভিস চার্জ ‍আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে ‍কাটা হবে।

9. লেনদেনের ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন:

  • ‍সফলভাবে লেনদেন সম্পন্ন ‍হলে আপনি একটি ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন।

বিকাশ থেকে বিকাশে টাকা ট্রান্সফার করার সুবিধা:

  • দ্রুত এবং সহজ
  • সুবিধাজনক
  • নিরাপদ
  • কম খরচে
  • সারা দেশে উপলব্ধ

মনে রাখবেন:

  • আপনি প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত পাঠাতে পারবেন।
  • লেনদেনের ‍সার্ভিস চার্জ ‍প্রেরণকৃত ‍টাকার পরিমাণের উপর নির্ভর করে।
  • আপনি যদি বিদেশে অবস্থান করেন, তাহলে আপনাকে অতিরিক্ত ‍চার্জ ‍দিতে হতে পারে।
  • আরও তথ্যের জন্য, আপনি বিকাশ ওয়েবসাইট (https://www.bkash.com/) বা গ্রাহক সেবা (https://www.bkash.com/en/help/contact-us) যোগাযোগ করতে পারেন।

বিদেশ থেকে বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

বিদেশ থেকে বিকাশে টাকা পাঠানোর জন্য, আপনাকে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে হবে:

প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র:

  • প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর
  • প্রেরণ করতে চাওয়া টাকার পরিমাণ
  • আপনার পরিচয়পত্র (যেমন, পাসপোর্ট, জাতীয় পরিচয়পত্র)
  • মানি ট্রান্সফার কোম্পানির (MTC) নাম এবং তথ্য

ধাপে ধাপে প্রক্রিয়া:

1. একটি মানি ট্রান্সফার কোম্পানি (MTC) নির্বাচন করুন:

  • বিভিন্ন MTC রয়েছে যারা বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর সেবা প্রদান করে।
  • জনপ্রিয় কিছু MTC হল Western Union, MoneyGram, Ria Money Transfer ইত্যাদি।
  • MTC নির্বাচন করার সময়, তাদের ফি, রেট এবং গ্রাহক পরিষেবা বিবেচনা করুন।

2. MTC ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করুন:

  • নির্বাচিত MTC-এর ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশনে যান।
  • একটি নতুন অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন বা আপনার বিদ্যমান অ্যাকাউন্টে লগইন করুন।

3. ‘টাকা পাঠানো’ বিকল্পটি নির্বাচন করুন:

  • ‘টাকা পাঠানো’ বা ‘Send Money’ বিকল্পটি খুঁজুন এবং ক্লিক করুন।

4. ‘বাংলাদেশ’ নির্বাচন করুন:

  • ‘প্রাপক দেশ’ হিসাবে ‘বাংলাদেশ’ নির্বাচন করুন।

5. প্রাপকের তথ্য প্রদান করুন:

  • প্রাপকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর, নাম এবং মোবাইল নম্বর প্রদান করুন।

6. প্রেরণ করতে চাওয়া টাকার পরিমাণ লিখুন:

  • আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান তা লিখুন।

7. MTC-এর নির্দেশাবলী অনুসরণ করুন:

  • MTC-এর নির্দেশাবলী অনুসরণ করে আপনার পরিচয় যাচাই করুন এবং পেমেন্টের তথ্য প্রদান করুন।
  • সাধারণত, আপনাকে ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড বা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে পেমেন্ট করতে হবে।

8. লেনদেন নিশ্চিত করুন:

  • সকল তথ্য যাচাই করার পর লেনদেনটি নিশ্চিত করুন।

9. লেনদেনের ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন:

  • ‍সফলভাবে লেনদেন সম্পন্ন ‍হলে আপনি একটি ‍সম্পন্ন ‍বার্তা ‍পাবেন।

10. প্রাপককে অবহিত করুন:

  • লেনদেনের ‍সম্পন্ন ‍তথ্য ‍প্রাপককে অবহিত করুন, যাতে তারা টাকা উত্তোলন করতে পারে।

বিকাশ সেন্ড মানি হাজারে খরচ কত

প্রিয় নম্বরে (যারা নিয়মিত লেনদেন করে):

  • ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত: ৫ টাকা
  • ২৫,০০০ টাকা থেকে ৫০,০০০ টাকা: ৫ টাকা
  • ৫০,০০০ টাকা থেকে বেশি: ১০ টাকা

অন্যান্য নম্বরে:

  • ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত: ১০ টাকা
  • ২৫,০০০ টাকা থেকে ৫০,০০০ টাকা: ৫ টাকা
  • ৫০,০০০ টাকা থেকে বেশি: ১০ টাকা

পরিশেষে

আমি আশা করছি আপনারা আপনাদের বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম এই প্রশ্নের উওর পেয়েছেন। আরো কিছু জানার থাকলে নিচে কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুনঃ কিস্তিতে মোটরসাইকেল কেনার নিয়ম

Visited 72 times, 1 visit(s) today

Leave a Comment

x