ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত টাকা লাগে| NID Fee | 2023

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত টাকা লাগে এবং কতদিনের মধ্যে আপনি নতুন ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে পারবেন এই বিষয়গুলি আজকে আর্টিকেলে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

যদি আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে চান অথবা আপনার ভোটার আইডি কার্ড যদি কোন প্রকার ভুল ত্রুটি থাকে তাহলে সেটি সমাধান করতে কত টাকা প্রয়োজন হবে।

ভোটার আইডি সংশোধন করতে কত টাকা লাগে।

যদি আপনার একটি ভোটার স্মার্ট আইডি কার্ড থাকে এবং সত্যি যদি কোন প্রকার ভুল ত্রুটি থাকে তাহলে সেটা কিন্তু খুব সহজ সমাধান করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট এনআইডি কার্ড সংশোধন ফি জমা করতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন
ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন

কয়েকটি ধাপে আপনি ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে পারেন এবং এর জন্য আলাদা আলাদা ফি আপনাকে পরিশোধ করতে হবে।

আরোও পড়ুন: NID Wallet কি 

সাধারণত স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড গুলিতে খুব কম সমস্যা দেখা যায় যদি আপনার স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডে কোন প্রকার সমস্যা থাকে তাহলে কিন্তু দ্রুত সময়ের মধ্যে সেটি সমাধান করার চেষ্টা করবেন।

অনেক সময় একটি ভুলের কারণে আপনার অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। অবশ্যই আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি ভালো করে চেক করবেন এবং সেখানে কোন প্রকার ভুল ত্রুটি থাকলে বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশনের ভোট ওয়েবসাইট থেকে সেটি সংশোধন করে নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

ভোটার আইডি নাম সংশোধন করতে কত টাকা লাগে।

প্রথমে আমার জীবনে ভোটার আইডি কার্ড থেকে নাম সংশোধন করতে কত টাকা লাগে। এখানে কয়েকটি ধাপে আপনি ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে পারবেন তবে তার মধ্যে একটি হচ্ছে ভোটার আইডি কার্ড যদি কোন উপকার নাম ভুল থাকে সেটি কিন্তু সংশোধন করা যাবে।

ভোটার আইডি কার্ডের নাম সংশোধনের জন্য আপনি যদি আবেদন করেন এ ক্ষেত্রে আপনার প্রথমবার প্রয়োজন হবে ২০০ টাকা এবং দ্বিতীয়বার ৩০০ টাকা ও যদি আপনি এর পরবর্তী সময়ে আবেদন করেন তাহলে প্রতিবার ৪০০ টাকা করে প্রয়োজন হবে আবেদন করার ক্ষেত্রে।

ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন ২০২৩ নিয়ম অনুযায়ী নাম সংশোধন করতে প্রথমবার ২৩০ টাকা ডেলিভারি ফি প্রয়োজন হবে। এবং এটি যদি আপনি পুনরায় আবার করেন এক্ষেত্রে আস্তে আস্তে এটি পরিমাণ বাড়তে থাকবে।

দ্বিতীয়বার যখন আপনি ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে যাবেন তখন অবশ্যই মনে রাখবেন এক্ষেত্রে আপনার ফি আরো বেশি অর্থ প্রধান করতে হবে।

এবং আপনার ভোটার আইডি কার্ড যদি রি-ইস্যু করতে চান তাহলে আপনার ফি প্রদান করতে হবে ৫৭৫ টাকা।

শুধুমাত্র স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ড নাম সংশোধন করতে হলে আপনার উপরোক্ত টাকা প্রদান করতে হবে। ন্যাশনাল আইডি কার্ড সংশোধন এর জন্য আপনাকে অন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ড অন্যান্য সংশোধন করতে কত টাকা লাগে।

যদি আপনি ভোটার আইডি কার্ডের নাম সমাধান না করে অন্যান্য তথ্যগুলি সমাধান করতেছেন এক্ষেত্রে আপনার আলাদাভাবে ফি প্রদান করতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ডের অন্যান্য সংশোধনের জন্য আপনি যদি আবেদন করেন এ ক্ষেত্রে আপনার প্রথমবার প্রয়োজন হবে ২০০ টাকা এবং দ্বিতীয়বার ৩০০ টাকা ও যদি আপনি এর পরবর্তী সময়ে আবেদন করেন তাহলে প্রতিবার ৪০০ টাকা করে প্রয়োজন হবে আবেদন করার ক্ষেত্রে।

প্রথমবার যদি আপনি ভোটার আইডি কার্ডের অন্যান্য সমস্যা যেমন ঠিকানা জন্ম সাল মাস ইত্যাদি যদি আপনি সংশোধন করতে চান তাহলে প্রথমবারের জন্য আপনার প্রয়োজন হবে ১১৫ টাকা ডেলিভারি ফি।

প্রথমবারের জন্য আপনার এই টাকা প্রযোজ্য হবে এবং এটি কিন্তু বাড়তে থাকবে যদি আপনি পরবর্তী আবার আপনার স্মার্ট ভোটার আইডি কার্ডের অন্যান্য সমস্যা সমাধান করতে চান।

এনআইডি কার্ড সংশোধন ফি কত টাকা।

যদি আপনার NID আইডি কার্ড নাম ও অন্যান্য সমস্যা সমাধান করতেছেন আপনার টোটাল ডেলিভারি ফি জমা দিতে হবে ৩৪৫ টাকা।

অনেকে হয়তো মনে করতে পারেন যখন আমরা প্রথমে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে সিলেক্ট করেছিলাম তখন তো অল্প পরিমাণ বেশি ছিল কিন্তু আপনি যদি তার নিচে একটু লক্ষ্য করেন তাহলে দেখতে পাবেন সেখানে একটি চার্ট রয়েছে।

সেখানে কিন্তু বলা হয়েছে আবেদনের ক্ষেত্রে এটি প্রয়োজন হবে এবং উপরে যদি বলা হয়েছে সেটি হল ডেলিভারি ফি। অর্থাৎ আপনাকে দুটোই কিন্তু জমা দিতে হবে যদি আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে চান।

কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে হয় এই নিয়ে আমরা পরবর্তীতে আর্টিকেল প্রকাশ করার চেষ্টা করব। এই আর্টিকেল থেকে আমরা জানার চেষ্টা করেছি ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত টাকা প্রয়োজন হবে অবশ্যই ভালো থাকবেন স্মার্ট কার্ড সংশোধনের ক্ষেত্রে উপরোক্ত তথ্য কার্যকর।

Visited 11 times, 2 visit(s) today

Leave a Comment

x